1. talash@talashprotidin24.com : Talash 1 : Talash 1
  2. iveerahaman@gmail.com : talash protidin : talash protidin
  3. talashprotidin2019@gmail.com : talashadmin :
রবিবার, ০৫ এপ্রিল ২০২০, ১২:১২ অপরাহ্ন
নোটিশ :
সারাদেশে প্রতিনিধি নিয়োগ চলছে...আগ্রহীরা সিভি/বায়োডাটাসহ জীবনবৃত্তান্ত পাঠান :  talashprotidin2019@gmail.com/ chowdhuryshamim2018@gmail.com মোবাইল : ০১৭১১২০২৫১৯, ০১৩১৬৩৮৩৩১৮
সংবাদ শিরোনাম :
করোনায় ঝুঁকি বাড়িয়ে কর্মস্থলে ছুটছে মানুষ দেশে আরো ৯ জন করোনায় আক্রান্ত শবে বরাতের নামাজ ঘরে আদায়ের অনুরোধ ইসলামিক ফাউন্ডেশনের একমাসের লকডাউনে সিঙ্গাপুর যুক্তরাষ্ট্রে ভাইরাসে ১,১৬৯ জনের মৃত্যুর রেকর্ড, বিশ্বব্যাপী একদিনে এ সংখ্যা সর্বোচ্চ : জনস হপকিন্স গুজবে কান দেবেন না, ত্রাণসামগ্রী বিতরণে কোন দুর্নীতি সহ্য করা হবে না : প্রধানমন্ত্রী বহুতল ভবনের নির্মাণাধীন  দেয়াল ধসে দক্ষিণ খানে নিহত-১, আহত-৩ গাজীপুরের ভাওয়ালগড়ে জেলা পুলিশ কর্তৃক খাদ্য সামগ্রী বিতরণ যুক্তরাষ্ট্রে করোনাভাইরাসে মৃত্যু সংখ্যা ৫,০০০ ছাড়িয়েছে : জনস হপকিন্স দেশে আরো ২ জন করোনার আক্রান্ত : আইইডিসিআর

নার্স যখন এমবিবিএস ডাক্তার!

সংবাদ কর্মীর নাম :
  • আপডেট সময় : বুধবার, ৩০ অক্টোবর, ২০১৯
  • ২৯৪ বার দেখা হয়েছে

সম্পাদকের কলম থেকে…
৩০ অক্টোবর ২০১৯ ইংরেজি, বুধবার

 

আমাদের দেশে বিভিন্ন প্রাইভেট ক্লিনিকে অনাভিজ্ঞ নার্সরা ডাক্তার সেজে রোগীদের সির্জার ও বিভিন্ন রোগের চিকিৎসা করে থাকে। তবে এই ভুল চিকিৎসায়, চিকিৎসকের অবহেলায় প্রতিনিয়ত শত-শত রোগী মারা যাওয়ার ঘটনা আমাদের দেশে নতুন নয়।
বিষয়টি অত্যন্ত দূঃখজনক। কিন্ত এবারের ঘটনাটি যেন সবকিছুকে ছাপিয়ে গেছে। এইতো কিছুদিন আগের ঘটনা বিপ্লব মন্ডল (২৬) নামে কেরানী গঞ্জের এক রোগী মোটর সাইকেল দুর্ঘটনায় আহত হয়ে ঢাকা মেডিকেলের ২০০ নম্বর ওয়ার্ডে ভর্তি হন। পরে বিপ্লব অসুস্থ্যবোধ করলে স্বজনরা তাকে দ্রুত চিকিৎসকের কাছে নিয়ে যান। চিকিৎসক ব্যবস্থাপত্রে ইনজেকসনের নাম লিখে দিয়ে তা দ্রুত কিনে আনতে বলেন। স্বজনরা ইনজেকসন কিনতে যাওয়ার সময় নাম না যানা এক যুবক এসে বিপ্লবের মুখে অক্সিজেন মাস্ক চেপে ধরেন। একটু পরে ঐ লোক বলেন রোগী মারা গেছে। এঘটনার পর উত্তেজিত জনতা ঐ লোক কে গনপিটুনি দেয়। পরে তাকে স্থানীয় পুলিশ এসে নিয়ে যায়। জানা যায় বিগত অনেক দিন যাবতকা ঐ লোক ঢাকা মেডিকেলের ২০০ নম্বর ওয়ার্ডে ওয়ার্ড বয় হিসাবে কাজ করে যাচ্ছেন, এক চিকিৎসকের পরামর্শে ঐ লোক রোগী বিপ্লবের কাছে যায়। এ অভিযোগের ভিত্তিতে তিন সদ্যের তদন্ত টিম গঠন করা হয়। ঢামেক হাসপাতালের উপ-পরিচালক খাজা আবদুল গফুরকে প্রধান করে, গত ২৪ সেপ্টেম্বর কমিটি গটন করাহয়। কমিটি অপর দুই সদস্য হলেন -ঢামেক হাসপাতালের সহকারি পরিচালক মোজাম্মেল হক ও আবাসিক চিকিৎসক জেছমিন নাহার। ভাবতে অবাক লাগে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের মত প্রতিষ্ঠানে কি করে এ ধরনের দায়িত্ব জ্ঞানহীন ঘটনা ঘটতে পারে? যেমন কিছু দিন পূর্বে দিনাজপুর এক প্রসুতির মৃত্য হয় ঐ ক্লিনিকের নার্সের হাতে। এ ভাবে আমাদের দেশে অসংখ্য রোগী ডাক্তারদের অবহেলার কারনে, অকারনে মৃত্যহয়। সাধারন মানুষের যে কোন রোগ ব্যাধির জন্য ছুটেযায় তৎক্ষনাত ডাক্তারের কাছে, কিন্ত মানুষ এখন ডাক্তারের উপর থেকে বিশ্বাস হারানোর পথে, কিন্ত কেন? আবার কিছু কিছু ডাক্তাররা রোগী ধরার দালালও রাখছেন। এ অবস্থার পরিবর্তন প্রয়োজন। এসমস্ত অকাল মৃত্যর ঘটনা তদন্ত করে দোষী ব্যক্তির দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি না হলে ঘটনার পুনরাবৃত্তি চলতেই থাকবে।

 

লেখক : সম্পাদক ও প্রকাশক এম. শামীম চৌধুরী
জাতীয় সাপ্তাকি তালাশ প্রতিদিন

নিউজটি শেয়ার করুন:

আপনার মতামত নিচে কমেন্টস করুন

এই ক্যাটাগরীর অন্যান্য সংবাদ সমূহ